শারীরিক শিক্ষা | নবম-দশম শ্রেণী | অধ্যায়-০১ | সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর-০২

শারীরিক শিক্ষা | নবম-দশম শ্রেণী | অধ্যায়-০১ | সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর-০২

∎ প্রশ্ন ২: নালন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রতিদিন শরীরচর্চার ও খেলাধুলার জন্য ২ পিরিয়ড বরাদ্দ থাকে। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে অবস্থানকালীন সময়ে পুষ্টিমানসমৃদ্ধ খাবার সরবরাহ করে। দৈনন্দিন কার্যক্রম মেনে চলার জন্য তাদেরকে একটি তালিকা দেওয়া হয়। এছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন বিতর্ক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান করে থাকে। এতে দেখা যায় ওরা যে কোনো পরিবেশে যে কোনো স্থানে সহজে সবার সাথে মিশতে পারে।

ক. আন্তঃক্রীড়াসূচি কী?
খ. অত্যাবশ্যকীয় কর্মসূচি বলতে কী বুঝায়- ব্যাখ্যা কর
গ. নালন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রথম কাজটি কী? উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা কর।
ঘ. চারিত্রিক মূল্যবোধের উন্নতি এবং সামাজিক গুণের বিকাশের মাধ্যমেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রকৃত অর্থেই সামাজিক জীবে পরিণত করা সম্ভব হয়েছে। মূল্যায়ন কর।

 নং প্রশ্নের উত্তর 

ক. দেয়ালের বাইরে যে সমস্ত খেলাধুলা হয় তাই আন্তঃ ক্রীড়াসূচি।

খ. অত্যাবশ্যকীয় কর্মসূচি বলতে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শারীরিক শিক্ষা বিষয়ে সরকারি নির্দেশাবলি, শারীরিক শিক্ষা বিষয়ক ক্লাস, প্রতিযোগিতা, সমাবেশ ও স্থানীয় নির্দেশনা ইত্যাদি বোঝায়। প্রাত্যহিক সমাবেশ করা, জাতীয় দিবসগুলোতে খেলাধুলা করা, স্কুল ক্যাম্পাস পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, টিফিন প্রোগ্রাম পরিচালিত করা ইত্যাদি অত্যাবশ্যকীয় কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত।

গ. নালন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রথম কাজটি হলো শিশু শিক্ষার্থীর ব্যক্তিগত বিকাশ সাধন।

উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা : শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো সামাজিক প্রতিষ্ঠান । তাই সমাজ সংরক্ষণ, সমাজ সংস্কার ও ইতিবাচক সামাজিক পরিবর্তনের কাজে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমাজ ও দেশের কাছে দায়বদ্ধ। দেশের মানব সম্পদকে সঠিকভাবে বিকশিত করা এবং আজকের শিশুকে আগামী দিনের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার দায়িত্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উপর ন্যাস্ত। তাই দায়িত্বের অংশ হিসেবেই নালন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ে শরীর চর্চা ও খেলাধুলার জন্য ২ পিরিয়ড বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের শরীর যাতে সুস্থ থাকে সেজন্য বিদ্যালয়ে অবস্থানকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদেরকে পুষ্টিমান সমৃদ্দ খাবার সরবরাহ করা হয়। শিক্ষার্থীদের সঠিকভাবে মানসিক বিকাশ সাধনের উদ্দেশ্যে স্কুল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন বিতর্ক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান করে থাকে। এর ফলে শিক্ষার্থীরা শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকার পাশাপাশি পড়াশোনায় ও সামাজিক কর্মকান্ডে মনোযোগী হতে পারে এবং শিশু শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশ সাধিত হয়।


ঘ. চারিত্রিক মূল্যবোধের উন্নতি এবং সামাজিক গুণের বিকাশের মাধ্যমেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রকৃত অর্থেই সামাজিক জীবে পরিণত করা সম্ভব হয়েছে। নালন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের দৈনন্দিন কার্যক্রমের একটি তালিকা দিয়েছেন, এর ফলে তাদের সারাদিনের কাজকর্ম একটি সুনির্দিষ্ট নিয়ম শৃঙ্খলার মধ্যদিয়ে চলে। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিতর্ক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে যোগদান করে এর ফলে তাদের সামাজিক গুণের বিকাশ ঘটে। সর্বদা নিয়ম শৃঙ্খলার মধ্যে থাকার কারণে তাদের চারিত্রিক গুণাবলী অর্জিত হয়। তাদের আনুগত্যবোধ ও নৈতিকতা বৃদ্ধি ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ জাগ্রত হয়। খেলাধুলার মাধ্যমে তাদের মধ্যে খেলোয়াড় ও বন্ধুত্বসুলভ মনোভাব গড়ে ওঠে এবং প্রতিদ্বন্দ্বীদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের মনোভাব গড়ে ওঠে। এছাড়াও তাদের মধ্যে নেতৃত্বদানের সক্ষমতা ও সামাজিক গুণাবলী অর্জিত হয়। পরিবার, সমাজ ও দেশের প্রতি তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হওয়ার সুযোগ পায়। তারা বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক ও জাতীয় অনুষ্ঠানের অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে খুব সহজেই যেকোনো পরিবেশের সাথে মিশে যাওয়ার মতো গুণাবলী অর্জন করতে পারে। অর্থাৎ চারিত্রিক মূল্যবোধের উন্নতি ও সামাজিক গুণের বিকাশের মাধ্যমেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রকৃত অর্থেই সামাজিক জীবে পরিণত করা সম্ভব হয়েছে।

0 Comment "শারীরিক শিক্ষা | নবম-দশম শ্রেণী | অধ্যায়-০১ | সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর-০২"

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Top Article Advertisement

Middle Advertisement Article 1

Middle Advertisement Article 2

Advertisement Below Article