আল কুরআনের ওহি ও শানে নুজুল

ওহি ও শানে নুজুল - বঙ্গ টুইট - Bongo Tweet

আসমানি কিতাবসমূহ ওহির মাধ্যমে অবতীর্ণ হয়েছে। সর্বশেষ নবি হযরত মুহাম্মদ (স) এর ওপর দুই প্রকারের ওহি অবতীর্ণ হয়। এক. ওহি মাতলু তথা- কুরআন মাজিদ; দুই. ওহি গায়রে মাতলু তথা- হাদিস। কোনাে ওহির উদ্দেশ্য, রহস্য ও মর্মার্থ অবগত হতে প্রয়ােজন শানে নুজুল। ওহি ও শানে নুজুলের পরিচয় তুলে ধরা হলাে-

ওহি

ওহি অর্থ: ইঙ্গিত করা, সংবাদ দেওয়া, জানিয়ে দেওয়া, ঢেলে দেওয়া ইত্যাদি। শরিয়তের পরিভাষায় ওহি অর্থ- আল্লাহ তায়ালা কর্তৃক তাঁর নবি-রাসুলদেরকে ফেরেশতার মাধ্যমে, স্বপ্নযােগে কিংবা ইলহামের মাধ্যমে কোনাে বিষয় জানিয়ে দেওয়াকে ওহি বলা হয়।

আসমানি কিতাব অবতরণের ধারা শুরু হয়েছে হযরত আদম (আ) এর মাধ্যমে এবং শেষ হয়েছে হযরত মুহাম্মদ (স) এর মাধ্যমে। এই ওহির মাধ্যমেই রাসুল (স)-এর ওপর কুরআন এবং হাদিস অবতীর্ণ হয়েছে। কুরআনেই আছে - "তিনি নিজের থেকে কিছুই বলেন না, যা কিছু বলেন, ওহির মাধ্যমেই রলেন" (সুরা আন-নাজম: ৩-৪) সুতরাং কুরআন ও হাদিস দুটি বিষয়ই আল্লাহর ওহি।

পবিত্র কুরআনে আল্লাহ আরাে বলেন - "নিশ্চয়ই আমি ওহি পাঠিয়েছি যেমন ওহি পাঠিয়েছি নুহ ও তার পরবর্তী নবিগণের কাছে এবং আমি ওহি পাঠিয়েছি ইবরাহিম, ইসমাইল, ইসহাক, ইয়াকুব তাঁর বংশধরগণ, ঈসা, আইয়ুব, ইউনুস, হারুন ও সুলাইমানের কাছে। আর দাউদকে প্রদান করেছি যাবুর" (সুরা আন-নিসা: ১৬৩)।

আরও পড়ুনঃ

শানে নুজুল

কোনাে ঘটনা সংঘটিত হওয়ার প্রেক্ষাপট বা অন্তর্নিহিত কারণকে শানে নুজুল বলা যায়। এর শাব্দিক বিশ্লেষণ হচ্ছে- শান অর্থ: অবস্থা, মর্যাদা, কারণ, ঘটনা, পটভূমি। আর নুজুল অর্থ: অবতরণ। সুতরাং শানে নুজুল অর্থ অবতরণের কারণ বা পটভূমি। পরিভাষায়- আল-কুরআনের সুরা বা আয়াত নাজিলের কারণ, ঘটনা বা পটভূমিকে শানে নুজুল বলা হয়। একে 'সববে নুজুল' ও বলা হয়।

আল-কুরআন মহানবি (স) এর ওপর এক সাথে নাজিল হয়নি। বরং নানা প্রয়ােজনে সুদীর্ঘ ২৩ বছরে অল্প অল্প করে নাজিল হয়েছে। কোনাে ঘটনার বিধান বর্ণনায় কিংবা কোনাে সমস্যার সমাধানে কুরআনের অংশবিশেষ নাজিল হতাে। যে ঘটনা বা অবস্থাকে কেন্দ্র করে কুরআনের আয়াত বা সুরা নাজিল হতো সে ঘটনা বা অবস্থাকে ঐ সুরা বা আয়াতের শানে নুজুল বলা হয়। যেমন- রাসুলুল্লাহ (স) এর শিশু পুত্র ইন্তেকাল করলে কাফিররা তাঁকে 'আবতার বা নির্বংশ' বলে ঠাট্টা-বিদ্রুপ করতে লাগল। এ পরিপ্রেক্ষিতে আল্লাহ তায়ালা মহানবি (স) কে সান্তনা দিয়ে সুরা আল-কাওসার নাজিল করেন। অতএব, মহানবি (স)-এর প্রতি কাফিরদের উপহাস করার ঘটনাটি সুরা আল-কাওসারের শানে নুজুল হিসেবে পরিচিত।

শানে নুজুল জানার উপকারিতা অনেক। এর মধ্যে উল্লেখযােগ্য উপকারিতা হলাে- ক. এর দ্বারা শরিয়তের বিধান প্রবর্তনের রহস্য জানা যায়। খ. আয়াতের অর্থ, উদ্দেশ্য ও সঠিক মর্মার্থ সম্পর্কে অবগত হওয়া যায়।

মন্তব্য করুন

নবীনতর পূর্বতন