আল কুরআন শিক্ষার গুরুত্ব

কুরআন শিক্ষার গুরুত্ব - বঙ্গ টুইট - Bongo Tweet

আল্লাহ তায়ালা মানবজাতির হেদায়েতের জন্য সর্বশেষ নবি হযরত মুহাম্মদ (স)-এর ওপর যে বাণীসমূহ সরাসরি ওহির মাধ্যমে নাজিল করেছেন তার সমষ্টি হচ্ছে আল-কুরআন। আল্লাহকে জানা, তাঁর আদেশ-নিষেধ অবগত হয়ে তদনুযায়ী জীবনযাপন করার জন্য কুরআন শিক্ষা করা অপরিহার্য।

১. শরিয়তের প্রধান উৎস: কুরআন মাজিদ শরিয়তের প্রধান এবং মূল উৎস। মহানবি (স) বলেছেন - "আমি তােমাদের মধ্যে দুটি বস্তু রেখে যাচ্ছি, যতদিন তােমরা এ দুটোকে আঁকড়ে থাকবে ততদিন পর্যন্ত তােমরা পথভ্রষ্ট হবে না। একটি হলাে আল্লাহর কিতাব" (আল-কুরআন), অপরটি হচ্ছে তাঁর রাসুলের সুন্নাহ (মিশকাত)। সুতরাং শরিয়তকে জানার জন্য কুরআন শিক্ষা করা আবশ্যক।

২. সমস্যার সমাধান লাভ: কুরআন মাজিদে মানবজীবনের সব সমস্যার সমাধান রয়েছে। আল্লাহ বলেন - "আমি আপনার প্রতি কিতাব নাজিল করেছি, যা প্রত্যেক বিষয়ের স্পষ্ট ব্যাখ্যাস্বরূপ" (সুরা আন-নাহল: ৮৯)। সুতরাং জীবন পরিচালনার ক্ষেত্রে যাবতীয় সমস্যার সমাধান লাভের জন্য কুরআন শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।

৩. শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন: কুরআন শিক্ষা গ্রহণকারী ও শিক্ষা দানকারীর মর্যাদা অত্যধিক। মহানবি (স) বলেছেন - "তােমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তি সর্বোত্তম যে কুরআন শিখে এবং অপরকে শিক্ষা দেয়" (বুখারি)।

আরও পড়ুনঃ

৪. আল্লাহর আহল হওয়া: কুরআন শেখা, মর্মার্থ অনুধাবন করা, ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করা ও তদনুযায়ী জীবনযাপনের মাধ্যমে আল্লাহর আহল (রূপকার্থে আল্লাহর পরিজন) হওয়া যায়। মহানবি (স) বলেছেন - "যারা কুরআনের আহল, তারাই আল্লাহর আহল ও বিশেষ লােক" (মুসনাদে আহমাদ)।

৫. অধিক সওয়াব: কুরআন ভালােভাবে শিখতে পারলে অধিক মর্যাদাবান হওয়া যায়। ভালােভাবে শিখতে না পারলেও চেষ্টা, সাধনা ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়। কারণ যে ব্যক্তি কষ্ট করে কুরআন শেখার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখে তার জন্য রয়েছে অধিক সওয়াব। মহানবি (স) বলেছেন - "কুরআনে পারদর্শী ব্যক্তি পুণ্যবান সুমহান সান্নিধ্যপ্রাপ্ত ফেরেশতার সঙ্গী হবেন। যে ব্যক্তি পাঠ করে এবং কষ্ট হওয়া সত্বেও চেষ্টা অব্যাহত রাখে তার জন্য রয়েছে দ্বিগুণ সওয়াব" (বুখারি ও মুসলিম)

৬. কুরআন শিক্ষার প্রতি আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের গুরুত্বারােপ: আল্লাহ তায়ালা ভালােভাবে কুরআন শেখা ও গবেষণা করার প্রতি গুরুত্বারােপ করে ইরশাদ করেছেন - "তারা কি কুরআন নিয়ে চিন্তা-গবেষণা করে না, নাকি তাদের অন্তর তালাবদ্ধ?" (সুরা মুহাম্মদ: ২৪)

মহানবি (স) কুরআন না শেখার পরিণতি সম্পর্কে বলেছেন - "যার মধ্যে কুরআনের কোনাে অংশ নেই, সে শূন্য গৃহের মতাে" (তিরমিযি)।

ওপরের আলােচনা থেকে স্পষ্ট এ ধারণা লাভ করা যায় যে, কুরআন শিক্ষা প্রত্যেক মুসলমানের ওপর ফরজ।

মন্তব্য করুন

নবীনতর পূর্বতন